Take a fresh look at your lifestyle.

স্ত্রীর পরকীয়া ধরতে বেডরুমে স্বামীর স্পাই ক্যামেরা! যা ধরা পড়ল দেখলে অবাক হবেন।

0

নিজের স্ত্রীর ওপর সন্দেহের তীর, তাই স্ত্রীকে নজরদারি রাখতে ঘরে স্পাইক্যাম লাগিয়ে গ্রেপ্তার হলেন স্বামী। ভারতের পুনের কালেপেডাল এলাকায় এই ঘটনা ঘটেছে। গত চার মাস ধরে স্ত্রীর বেডরুমে স্পাই ক্যামেরা লাগিয়ে রাখলেও তা সম্প্রতি জানতে পারেন তথ্য-প্রযুক্তি ক্ষেত্রের কর্মী ওই মহিলা।

বেঙ্গালুরুর বাসিন্দা ওই দম্পতির একটি ১২ বছরের ছেলেও রয়েছে। আগে তাঁদের সম্পর্ক ঠিক থাকলেও কিছুদিন আগে অফিসের কাজে বিদেশ থেকে ঘুরে আসার পর তিক্ততা বাড়ে দু-জনের মধ্যে। স্ত্রীর অন্য কারোর সঙ্গে সম্পর্ক রয়েছে এই সন্দেহ বাসা বাঁধে ওই ব্যক্তির মনে। এই নিয়ে স্ত্রীর ওপর শারীরিক ও মানসিক অত্যাচারও তিনি চালাতেন বলে অভিযোগ।

ভিডিওটি দেখতে নিচে ক্লিক করুন।

ভিডিওটি পোষ্টের নিচে দেয়া আছে। ভিডিওটি দেখতে স্ক্রল করে পোষ্টের নিচে চলে যান।

আরো পড়ুনঃ

স্বামী নিজেই বাসর রাতের ভিডিও করতেন, অতপর…

নিজেদের যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক পরিচয় দিয়ে প্রথমে তরুণীদের সাথে সম্পর্ক তৈরি করতেন। এরপর লন্ডনে নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন। সেই স্বপ্নের জালে ধরা পড়তো তরুণীরা। এরপর বিয়ে। বিয়ের পর বাসর রাতের ভিডিও করতেন স্বামী। আর সেই ভিডিও নিয়েই চলত ভয়ঙ্কর প্রতারণা।

বাসর রাতের সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ছেড়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে সেই তরুণীদের মাদকদ্রব্য সরবরাহের মতো অবৈধ কাজ করতে বাধ্য করা হতো। বাধ্য করা হতো যৌন কাজ করতেও। চালানো হতো যৌন নির্যাতন।এমনই এক চক্র ধরা পড়েছে পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের মিরপুরে।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, ওই চক্রের ফাঁদে ১৫ জনেরও বেশি তরুণী প্রতরণার শিকার হয়েছে।প্রতারক চক্রের নেতৃত্বে ছিলেন মুমতাজ নামের এক ব্যক্তি। তিনি নিজেকে ব্রিটিশ-পাকিস্তানি বলে পরিচয় দিতেন।

বিয়ের পর এই প্রতারক চক্রের সদস্যরা সদ্য বিবাহিত স্ত্রীদের যুক্তরাজ্যে নিয়ে যেতে অস্বীকৃতি জানাতেন। কোনো তরুণী তালাক চাইলে দেয়া হতো না। বরং তাদের বিরুদ্ধে চুরির মিথ্যা মামলা দেয়া হতো। অভিযুক্তরা বর্তমানে পলাতক আছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.